বাড়ি বিউটি টিপস শরীরে রোদ লাগাবেন কেন?

শরীরে রোদ লাগাবেন কেন?

169

শরীররে রোদ  লাগানোর ব্যাপারে অনেকেই চিন্তা করেন তাতে ত্বক নষ্ট হয়, পুরে যায়, কালো দাগ পড়ে। কিন্তু অনেকেই জানেন না যে অতিরক্ত কড়া রোদে থাকলেই এমনটি হয়। সকাল সকাল হালকা রোদ প্রতিদিন শরীরে লাগানো খুবই উপকারি।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা

কয়েকটি জরিপে দেখা গেছে, হালকা রোদ শরীরে লাগলে টি সেলগুলো সক্রিয় হয়ে পড়ে। এই টি সেল আমাদের দেহের রোগ প্রতিরোধে বিশেষ ভূমিকা নেয়। শরীরের জীবাণু ধ্বংস করতে এই টি সেল সক্রিয় ভাবে কাজ করে।

ভিটামিন ডি

ভিটামিন ডি ত্বকে তৈরি হয় যখন হালকা রোদ শরীরে লাগে। রোদের ভিটামিন ডি-এর অভাবে অকালে হাড় ব্যথা ও ক্ষয় বাড়ে। এছাড়া শরীরে ভিটামিন –ডি এর অভাবে মিসক্যারেজ হওয়ার আশঙ্কাও থেকে যায়। কয়েকটি গবেষণায় দেখা গেছে, গ্রীষ্মে গায়ে রোদ লাগালে রক্তে ভিটামিন ডি ৩-এর মাত্রা ভাল থাকে। আর শীতকালে এই ভিটামিন ডি ৩ থেকে পর্যাপ্ত পরিমান ভিটামিন ডি পাওয়া যায়।

ক্যান্সার প্রতিরোধ

বেশ কিছু জরিপে দেখা গেছে ব্রেস্ট, কোলোন এবং প্রস্টেট ক্যান্সার রোধে সাহায্য করে সূর্যের আলো।

ঘুমের হরমোন

আমাদের শরীরের মেলাটোনিন নামে একটি হরমোন ক্ষরিত হয়, যার কারণে আমাদের ঘুম আসে। সূর্যের আলো গায়ে লাগলে রাতে মেলাটোনিন ক্ষরণ ভাল হয় এবং খুব ভাল ভাল হয়।

মন ভাল রাখতে

সঠিকভাবে সূর্যের আলো গায়ে পড়লে এন্ডোর্ফিন নামের হরমোন নিঃসৃত হয়। এই হরমোনের কারণে আমাদের মেজাজ ভাল থাকে। এন্ডোর্ফিন হরমোন যে কোনো ব্যথা, ডিপ্রেশন বা অবসাদ কাটাতে খুব উপকারি।

পুরুষ হরমোন

একটি জরিপে দেখা গেছে পুরুষদের রক্তে টেস্টোস্টেরন নামক হরমোনের মাত্রা যে স্বাভাবিক থাকে তা ভিটামিন ডি-এর মাত্রা ঠিক থাকার কারণে। আর ভিটামিন ডি’র প্রধান উৎস হলো সূর্যের আলো।

শ্বেতি রোগ কমাতে

আমাদের ত্বকে আছে মেলানোসাইট নামের কোষ। এই কোষ মেলানিন তৈরি করে। মেলানিনের উপর দেহের রং কালো হবে না ফর্সা হবে তা নির্ভর করে। মেলানিন আসলে আমাদের ত্বক রক্ষা করে। অন্যদিকে সূর্যের আলো বেশি করে মেলানিন তৈরি করে। যেহেতু শ্বেতি রোগে মেলানিন উৎপাদনে সমস্যা হয়, চিকিৎকরা এই রোগীদের একটি নিদিষ্ট সময় রোদে থাকতে বলে থাকেন।

বাচ্চাদের উচ্চতা বৃদ্ধিতে

কিছু ক্ষেত্রে বাচ্চাদের গ্রোথ হরমোনের ঘাটতি থাকে ফলে উচ্চতা বৃদ্ধিতে সমস্যা হয়। কিন্তু চিকিৎসকরা বলেন, দৈহিক বৃদ্ধির হার গ্রীষ্মকালে বাড়ে। এছাড়া ভিটামিন ডি হাড়ের বৃদ্ধিতে সাহায্য করে তাই উচ্চতাও বাড়ে।

ছোটদের জন্ডিস

বাচ্চারা জন্মের পরই অনেকসময় জন্ডিসে আক্রান্ত হয়। এই জন্ডিস কমাতে সকালের রোদ ভাল কাজ করে। তবে সরাসরি শিশুকে রোদে না রেখে বরং কাচের জানলার পাশে রাখুন ১০ মিনিট, তাতেই শিশু ভাল থাকবে।

কখন যাবেন রোদে

সকাল ১১টার পর সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি শরীরের লাগানো যাবে না। তাই সকাল ৮টার পর আধঘণ্টা রোদে হাঁটুন। ছোটরা ১৫ মিনিটের মত থাকাই ভাল। তবে একটু বড় বয়সের বাচ্চা রোদে খেললে কোনো সমস্যা নেই।