বাড়ি আবহাওয়া বাংলাদেশের উপকুলে সকালে আঘাত হানার সম্ভাবনা ফনীর

বাংলাদেশের উপকুলে সকালে আঘাত হানার সম্ভাবনা ফনীর

128

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ভয়ংকর ঘূর্ণিঝড় ফণি ভারতে অন্ধ্রপ্রদেশ ও ওড়িশায় আঘাত হানার পর, ধেয়ে আসছে বাংলাদেশের উপকূলের দিকে।
বাংলাদেশের আবহাওয়া অধিদপ্তর ইতোমধ্যে সমুদ্রবন্দরগুলোতে সতর্কতার মাত্রা বাড়িয়ে দিয়েছে। মংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরে সাত নম্বর বিপদ সংকেত, চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরে ছয় নম্বর এবং কক্সবাজার সমুদ্রবন্দরকে চার নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত অব্যাহত রাখতে বলা হয়েছে।

ফণির আঘাতে উপকূলের জেলাগুলোতে সব থেকে বেশি ক্ষয়ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে। নিম্নাঞ্চলে চার থেকে পাঁচ ফুট জলোচ্ছাস হতে পারে বলে সতর্ক করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে আবহাওয়া অধিদপ্তরের বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ফণি আজ বিকেল ৩টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৯৫৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্র বন্দর থেকে ৯২৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ৭৯০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্র বন্দর থেকে ৮১০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছিল।

খুলনা ও তৎসংলগ্ন বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় আগামীকাল শুক্রবার সকাল নাগাদ অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড় ফণির অগ্রবর্তী অংশের প্রভাব শুরু হতে পারে। এটি আরও ঘণীভূত ও উত্তর বা উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে শুক্রবার বিকেল নাগাদ ভারতের ওড়িষা উপকূল অতিক্রম করতে পারে। পরবর্তীতে ওড়িষা-পশ্চিমবঙ্গ উপকূল হয়ে শুক্রবার সন্ধ্যা নাগাদ খুলনা ও তৎসংলগ্ন বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল এলাকায় পৌঁছতে পারে।

আবহাওয়ার বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৭৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘন্টায় ১৬০ কিলোমিটার যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ১৮০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের নিকটে সাগর খুবই বিক্ষুব্ধ রয়েছে।