বাড়ি বাংলাদেশ সংস্কার হতে যাচ্ছে দেশের ভূমি আইন: ভূমিমন্ত্রী

সংস্কার হতে যাচ্ছে দেশের ভূমি আইন: ভূমিমন্ত্রী

32

ব্রিটিশ আমলের ভূমি বিষয়ক আইন পর্যায়ক্রমে যুগোপযোগী করার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী। তিনি বলেন, নতুন আইন তৈরির পাশাপাশি পুরনো আইন সংস্কার করার মাধ্যমে ভূমি সেবা আরো গতিশীল করার উদ্দেশ্যে এ কার্যক্রম গ্রহণ করা হচ্ছে।

৮ জুলাই সোমবার রাজধানীর কাঁটাবনে অবস্থিত ভূমি প্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে চার সপ্তাহের ‘১১ তম বেসিক ভূমি ব্যবস্থাপনা প্রশিক্ষণ কোর্স’ এর উদ্বোধনকালে কোর্সে অংশগ্রহণকারী নবনিযুক্ত সহকারী কমিশনার (ভূমি)/এসিল্যান্ডদের উদ্দেশ্যে তিনি এ কথা বলেন।

নতুন আইন তৈরির পাশাপাশি পুরনো আইন সংস্কার করার মাধ্যমে ভূমি সেবা আরও গতিশীল করার উদ্দেশ্যে এ কার্যক্রম গ্রহণ করা হচ্ছে জানিয়ে ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী তার বক্তব্যে বলেন, ‘সরকার দুর্নীতির ব্যাপারে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি গ্রহণ করেছে। মন্ত্রণালয় থেকে মাঠ পর্যায়ের ভূমি অফিসের কর্মকাণ্ড পরিবীক্ষণ করার পাশাপাশি আকস্মিক পরিদর্শন করা হচ্ছে।

দুর্নীতির প্রমাণ পেলেই আইন অনুযায়ী তাৎক্ষনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। এছাড়া, কিছু দিনের মধ্যে হট-লাইনের কার্যক্রম শুরু হবে – এতে স্বচ্ছতা আরও বৃদ্ধি পাবে।’ প্রশিক্ষণার্থীদের ভূমি মন্ত্রী দিকনির্দেশনায় ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী বলেন, ‘নেতৃত্ব গুণাবলী প্রদর্শনের মাধ্যমে ভূমি অফিসে কর্মরত অধস্তনদের পরিচালনা করতে হবে। কোন সিদ্ধান্ত নেওয়ার সময় তাদের উপর নির্ভর করে ভুল পথে চলা যাবেনা। এসিল্যান্ডরা যতদিন ভূমি মন্ত্রণালয়ের অধীনে কাজ করবেন ততদিন তাঁদের মূল দায়িত্ব জনগণকে ভূমি সেবা প্রদান করা। অতি জরুরী রাষ্ট্রীয় দায়িত্ব ব্যতীত অন্যান্য কর্মকাণ্ড যেমন সাধারণ প্রটোকলের দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে যেন নিয়মিত ভূমি সেবা প্রদানে বিঘ্ন না ঘটে – তা মন্ত্রী স্মরণ করিয়ে দেন।

মন্ত্রী বলেন এ ব্যাপারে একটি ইতোমধ্যে দিকনির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে। মন্ত্রী বলেন ভূমি মন্ত্রণালয় মূলত সেবা ভিত্তিক মন্ত্রক। স্বচ্ছতা, জবাবদিহি এবং সুনামের মাধ্যমে সার্ভিস প্রদান করতে হবে। মন্ত্রী আশা প্রকাশ করেন প্রশিক্ষণার্থী কর্মকর্তাবৃন্দ দেশের মানুষকে সঠিক সেবা প্রদানের মাধ্যমে কিছু দিয়ে যাবেন। এমন ভাবে তাঁরা কাজ করবেন যেন নতুন কর্মস্থলে বদলী হবার সময় তাঁদের সুনাম বর্তমান কর্মস্থলে থেকে যায় – যেন ক্ষণস্থায়ী এ জীবনে চিরস্থায়ী বন্ধন সৃষ্টি হয়।

বিশেষ অতিথি ভূমি সচিব মো. মাক্ছুদুর রহমান পাটওয়ারী বলেন, ‘গতিশীল ও জনবান্ধব ভূমি সেবা প্রদান করাই ভূমি মন্ত্রণালয়ের বর্তমান লক্ষ্য এবং মাঠ পর্যায়ে তা বাস্তবায়িত করার গুরুদায়িত্ব আপনাদের। ভূমি ব্যবস্থাপনার সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ শর্ত হচ্ছে স্বচ্ছতা – আপনারা দায়িত্বপালন করার সময় এর উপর সর্বোচ্চ গুরুত্বারোপ করবেন।’ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন ভূমি প্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের পরিচালক মো. আব্দুল হাই।

এছাড়া উক্ত প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের বিভিন্ন পর্যায়ের প্রশিক্ষক সহ উক্ত প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণকারী বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারের ৩৩ এবং ৩৪ ব্যাচের এসিল্যান্ডবৃন্দ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, ভূমিমন্ত্রীর উদ্যোগে এসিল্যান্ডদের আরও নিবিড় প্রশিক্ষণ প্রদানের উদ্দেশ্যে দুই সপ্তাহের কোর্সটি এবার থেকে চার সপ্তাহব্যাপী অনুষ্ঠিত হবে।