বাড়ি অদ্ভুতুড়ে নগরীতে মদ্যপানে তিন বন্ধুর মর্মান্তিক মৃত্যে

নগরীতে মদ্যপানে তিন বন্ধুর মর্মান্তিক মৃত্যে

49

জয় সরকার »

নগরের আকবর শাহ এলাকায় মদপানে তিন ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে দুইজন চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল ও একজন বেসরকারি একটি হাসপাতালে মারা গেছেন।

নিহতরা হলেন- আকবর শাহ মালিপাড়া তপন মজুমদারের ছেলে শাওন মজুমদার (৩২), মিল্টন গোমেজ  ও বিশ্বজিৎ মল্লিক।  এ ছাড়া উজ্জ্বল বণিক নামে একজন চিকিৎসাধীন। তারা সবাই বিশ্ব কলোনির মালিপাড়ার বাসিন্দা বলে পুলিশ জানিয়েছে।

আকবর শাহ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী বলেন, চারজনই নিয়মিত মদ পান করতেন। গত মঙ্গলবার রাতে তারা মদ পান করেন। পরদিন সকাল থেকে অসুস্থ হয়ে পড়েন। অতিরিক্ত মদ পানে, নাকি ভেজাল মদের কারণে মৃত্যু হয়েছে, সেটা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। নিহত তিনজনের ময়নাতদন্ত চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সম্পন্ন হয়েছে। এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর মৃত্যুর কারণ স্পষ্ট হবে। এই ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

নিহত শাওন মজুমদারের ছোট ভাই রাহুল মজুমদার আজ বিকেলে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ মর্গের সামনে থাকাবস্থায় বলেন, তাঁর ভাই বন্ধুদের সঙ্গে মদপান করেন। পরদিন থেকে অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে তারা হাসপাতালে ভর্তি করলে সেখানে মারা যান। তাঁর ভাই আগেও মদপান করেছেন। মদে ভেজাল থাকতে পারে বলে তাঁর ধারণা। এটির সঙ্গে যারা জড়িত তাদের শনাক্তের দাবি জানিয়েছেন তিনি।

কিন্তু পরদিন অথ্যাৎ ১৪ আগষ্ট দুপুরের দিকে তাদের শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে, বাড়ির লোকজন তাদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসে।

পরে দুইজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য নগরীর দুটি বেসরকারী হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। রাতে শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে, কর্তব্যরত চিকিৎসক চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে ২ জন ও বেসরকারি হাসপাতালে থাকা একজনকে মৃত ঘোষণা করেন।

অসুস্থ উজ্জ্বলকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ জানতে পেরেছে- তারা কেরু অ্যান্ড কোম্পানির মদ পান করেছিল। এসব মদ অনুমোদিত দোকানের বাইরে এনে ভেজাল করা হয়। এক বোতলের মদে অন্য মদ মিশিয়ে ২-৩ বোতল করা হয়। 

সেই ভেজাল মদ খেয়ে তাদের মৃত্যু হয়েছে কি না, সেটা তদন্ত করে দেখছে পুলিশ।

একই এলাকার তিনজনের মৃত্যু ও আরেকজন গুরুতর অসুস্থ হওয়ায় বিশ্বকলোনি মালিপাড়ায় লোকজনের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। আজ বিকেলে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ মর্গের সামনে ভিড় করেন এলাকার লোকজন। তারা সবাই মদপানে যাতে আর কারও মৃত্যু না হয় সেই ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান।