বাড়ি অদ্ভুতুড়ে এমপি মন্ত্রীদের কণ্ঠ নকল করে প্রতারণা ২ প্রতারক আটক

এমপি মন্ত্রীদের কণ্ঠ নকল করে প্রতারণা ২ প্রতারক আটক

70

কখনো এসিল্যান্ড কখনো অর্থমন্ত্রীর মেয়ে নাফিসা কামালের এপিএসএর কণ্ঠ নকল করে প্রতারণার মাধ্যমে হাতিয়ে নেয় লাখ লাখ টাকা। ঠকছে সাধারণ মানুষ। সোমবার সন্ধ্যায় এমন দুই প্রতারককে আটক করেছে জোরারগঞ্জ থানা পুলিশ। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ওরা প্রতারণার কথা স্বীকার করেছে।

আটককৃতরা হলো, কুমিল্লা জেলার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার পূর্ব চান্দিশকরা গ্রামের এনামুল হকের পুত্র শাহিন (২৯) ও একই গ্রামের হাজী আব্দুর রউফের পুত্র মো. হারুন (৩৮)।

কুমিল্লা জেলার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার পূর্ব চান্দিশকরা গ্রামের এনামুল হকের পুত্র শাহিন ও হারুনসহ একটি সংঘবদ্ধ চক্র দীর্ঘ দিন ধরে কণ্ঠ নকল করে প্রতারণা করে আসছে। ওরা বিভিন্ন মন্ত্রী এমপির এপিএসের কণ্ঠ নকল করে চাকুরি, জমি ইজারা, বদলিসহ বিভিন্ন ধরনের তদবির করে থাকে। আর তদবির প্রতারণার মাধ্যমে হাতিয়ে নেয় লাখ লাখ টাকা।

ভুয়া নাম দিয়ে একটি ফেসবুক আইডি খোলে শাহিন। আইডির নাম দেয় তানিশা আফরিন একা। এসময় ফেসবুকের মাধ্যমে পরিচয় হয় ভুক্তভোগী দিদারুল আলেমের। শাহিন প্রথম পরিচয়ে নিজেকে স্কুল শিক্ষিকা বলে পরিচয় দেয়। পরে দুই জনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। কিছু দিন পর শাহিন নিজেকে এসিল্যান্ড হিসেবে পরিচয় দেয়। দিদারুল আলমকে জানায় ৩৬তম বিসিএসে সে স্কুল শিক্ষিকা থেকে এসিল্যান্ড হয়ে গেছে। পরে বিয়ের দিনক্ষণ ঠিক হয়।

পরবর্তীতে শাহিন বিভিন্ন অজুহাতে দিদারুল আলমের সাথে দেখা করতে অনিহা প্রকাশ করে। দিদারুল আলম অনেকবার ইমো ও ভাইবারে তার সাথে কথা বলতে চাইলেও শাহিন করেনি। পরবর্তীতে শাহিন ও হারুন হঠাৎ একদিন দিদারুল আলমের বাড়ি আসে। তারা নিজেকে তানিশা আফরিন একার আত্মীয় ও অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের মেয়ের এপিএস হিসেবে পরিচয় দেয়। এসময় তারা তানিশা আফরিন একার পেটে ৪ মাসের বাচ্চা রয়েছে হুমকি দেয়। এভাবে তারা প্রতারণার মাধ্যমে ৩ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়।

সোমবার বিকালে জোরারগঞ্জ থানাধীন চিনকির আস্তানা মসজিদের সামনে তারা আবারো প্রতারণার মাধ্যমে টাকা নিতে এলে বিষয়টি তিনি কৌশলে তাৎক্ষণিক জোরারগঞ্জ থানা পুলিশকে জানান। পরে জোরারগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক সুজয় কুমার মজুমদার ও বারইয়ারহাট পৌরসভার স্থানীয় কাউন্সিলর গিয়ে দুই প্রতারককে আটক করে।

ঘটনার বিষয়ে জোরারগঞ্জ থানায় নিয়মিত মামলা রুজু হয়েছে।আসামীদেরকে বিজ্ঞ আদালতে সোর্পদ করা হলে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বিজ্ঞ আদালত ০৩(তিন) দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন। এ সংক্রান্তে জিজ্ঞাসাবাদ অব্যাহত আছে।