বাড়ি তথ্যপ্রযুক্তি জেনে নিন অ্যানড্রয়েড ১০ এ নতুন কী কী ফিচার থাকছে

জেনে নিন অ্যানড্রয়েড ১০ এ নতুন কী কী ফিচার থাকছে

77

অ্যান্ড্রয়েড নতুন ভার্সনে নতুন নতুন বেশ কিছু চমকপ্রদ ফিচার যোগ করে। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। তবে গুগল বলছে, ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্যের সুরক্ষা ও নিরাপত্তার বিষয়টি সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব পেয়েছে নতুন এ সংস্করণে। এছাড়াও নতুন সংস্করণে চমকপ্রদ কিছু ফিচার থাকবে অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমে।

ডার্ক মোড

এই ফিচারটি প্রথমে পাবলিক বেটা ভার্সনে রিলিজ করা হয়েছিল। পরে গুগলের আইও ডেভেলপার সম্মেলনে ফিচার নিশ্চিত করা হয়। সেটিংসে ব্যাটারি ট্যাব থেকে ডার্ক থিম চালু করা যাবে। গুগল গত কয়েক মাসে তাদের কিছু অ্যাপে এ মোড যুক্ত করেছে।

লোকেশন

অ্যানড্রয়েড ১০ সংস্করণে প্রাইভেসি সুরক্ষার বিষয়কে গুরুত্ব দিচ্ছে গুগল। অ্যাপে লোকেশন অ্যাকসেস যাতে ব্যবহারকারীরা নিয়ন্ত্রণ করতে পারে সে বিষয়টি যুক্ত করা হচ্ছে। এ ছাড়া লোকেশন সেবা চালু বা বন্ধ করার সুবিধার পাশাপাশি কোনো অ্যাপে অনুমতি ছাড়া লোকেশন সেবা চালু হবে না, সেটাও নিশ্চিত করা হয়েছে।

ফাস্ট শেয়ার

অ্যানড্রয়েড ১০-এর সঙ্গে নতুন একটি ফিচার নিয়ে আসছে গুগল। এই ফিচারের সাহায্যে ইউজাররা খুব সহজেই ফাইল শেয়ার করতে পারবে। এই ফিচারে নাম ফাস্ট শেয়ার।

ডিপ ফটো

ডীপ ফটো ফিচারের ফলে আপনার ছবি গুলোতে স্বয়ংক্রিয় ভাবে বিভিন্ন ধরণের ব্লার ইফেক্ট, বোকেহ অপশন, ডাটা ব্যবহার করে থ্রিডি ইমেজ তৈরি এবং এআর ফটোগ্রাফি সাপোর্ট করবে। এই ফিচারটির ফলে আপনার ছবি গুলোকে আরও বেশি প্রাণবন্ত মনে হবে।

ব্যাটারি নির্দেশক

 এই মুহূর্তে বাজারে যতো স্মার্টফোন রয়েছে তার প্রায় সবগুলোতেই কত শতাংশ চার্জ রয়েছে তা দেভায়। কিন্তু অ্যানড্রয়েড ১০-এ আপনি জানতে পারবেন আপনার ফোন কতক্ষণ চলবে।

গেশচার নেভিগেশন

অ্যান্ড্রয়েডের আইকনিক ব্যাক বাটন তুলে দেয়া হয়েছে অ্যান্ড্রয়েড ১০ থেকে। যদিও এই ফিচারটি অ্যান্ড্রয়েড পাইয়ের মধ্যে বিদ্যমান ছিল।  জেশ্চারের মাধ্যমে নেভিগেশন অপশনগুলো ব্যবহারের সুযোগ মিলবে অ্যান্ড্রয়েড কিউ বা ১০ এ  ভার্সনে। আইকনিক ব্যাক বাটনের পরিবর্তে সোয়াইপ আপ করে হোম স্ক্রিনে আসা এবং সোয়াইপ আপ এবং হোল্ড করে রেখে মাল্টিটাস্কিং করতে পারবেন।

বিল্ট-ইন স্ক্রিন রেকর্ডার

বর্তমানে অ্যান্ড্রয়েড ফোনের স্ক্রিন রেকর্ড করার জন্য থার্ড পার্টির অ্যাপ ব্যবহার করতে হয়।  কিন্তু অ্যান্ড্রয়েডের  এই ভার্সনে বিল্ট-ইন স্ক্রিন রেকর্ডার রয়েছে। এটা খুব সম্ভবত পাওয়ার বাটন ব্যবহার করে চালু করা যাবে। যদিও এই ফিচারটি অনেক আগে থেকে আইফোনে রয়েছে।

নচ-এর সাপোর্ট

বর্তমানে বিভিন্ন অ্যাপ নচ সাপোর্ট করলেও অনেক অ্যাপ রয়েছে যা নচ সাপোর্ট করে না। কিন্তু অ্যান্ড্রয়েড কিউয়ের মধ্যে সব অ্যাপের জন্য নচ-এর সাপোর্ট করবে।

স্ক্রিন রেকডিং

Android 10 ভার্সনে গুগল শেষপর্যন্ত বহু প্রতীক্ষিত স্ক্রিন রেকডিং এর অপশন নিয়ে আসল,আগে মূলত থার্ড পার্টি আ্যপের মাধ্যমে যা সম্ভব ছিল।এই স্ক্রিন রেকর্ডিং অপশনটি ডেভেলপার অপশনের মধ্যে পাওয়া যাবে, এবং প্রাথমিকভাবে এটি সক্রিয় করার পদ্ধতি বেশ জটিল।

কিন্তু নিঃসন্দেহে এই নতুন ফিচারটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ যার ফলে কোন আ্যপ ছাড়াই স্ক্রিনে চলা কোন ভিডিও রেকর্ড করা যাবে।

বিভিন্ন রঙের থিম

ইউজার ইন্টারফেসে (ইউআই) পরিবর্তন আনার পাশাপাশি বিভিন্ন রঙের থিম ব্যবহার করার সুযোগ দিতে পারে অ্যানড্রয়েড ১০।

সিম লক

যদিও এটা  সাধারণ ব্যবহারকারীদের জন্য উপকারী কোন ফিচার নয়। এই ফিচারের মাধ্যমে সিম কোম্পানি গুলো সুনির্দিষ্ট ফোনগুলোতে তাদের সিম ব্যবহার বন্ধ করতে পারবে। আর সেই সব বন্ধ সিম আপনি চাইলেও আর আপনার ওই ফোনে  ব্যবহার করতে পারবেন না।

ডুয়েল সিম

অ্যান্ড্রয়েডের নতুন ভার্সনে আপনি দুটো সিম একসাথে চালাতে পারবেন। দুটো সিম বলতে আমরা ই-সিম ও ফিজিক্যাল সিমের কথা বললাম। ই-সিমের গুরুত্ব বুঝে কোম্পানি এই ফিচার যুক্ত করেছে।

ভাঁজকরা ডিসপ্লের উপযোগী

বর্তমানে বাজারে সাধারণ স্মার্টফোনের পাশাপাশি ভাঁজ করা স্মার্টফোনের পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে। তাই যুগের চাহিদার সাথে তাল মিলিয়ে তাদের এবারের আপডেট ভাঁজ করা ফোনের সাথে সামঞ্জস্যতা রেখেছে।এখন আপনি আপনার ইচ্ছামত ফোল্ডেবল ডিভাইসের  স্ক্রিনের সাথে সামঞ্জস্যতা রেখে ফোন ব্যবহার করতে পারবেন।

ডাউনগ্রেড অ্যাপ আপডেট

আপনি অ্যাপ আপডেট করেছেন কিন্তু আপনি চাচ্ছেন আবার পুনরায় পূর্বের আপডেট ফিরে যেতে। স্বাভাবিকভাবেই অতীতের অ্যান্ড্রয়েড ফোনে এই কাজটা করা সম্ভব ছিল না।  কিন্তু বর্তমান আপডেট এই কাজটা আপনি খুব সহজে করতে পারবেন।

ফাইল শেয়ারিং

অ্যানড্রয়েড ১০-এর সঙ্গে নতুন একটি ফিচার নিয়ে আসছে গুগল। অ্যান্ড্রয়েডের শেয়ার মেন্যুটি সবসময় ব্যস্ত থাকায় ধীরে ধীরে এর গতি হ্রাস পায়। এই সমস্যার সমাধানে নতুন উপায় এনেছে গুগল। শেয়ার মেন্যুতে ‘শেয়ারিং শর্টকাটস’ নামের অপশনটি ছবি, ফাইল ডকুমেন্ট ইত্যাদি অন্য যেকোন অ্যাপের চেয়ে দ্রুততম সময়ে। এই ফিচারের সাহায্যে ইউজাররা খুব সহজেই ফাইল শেয়ার করতে পারবে।

এই ফিচারে নাম ফাস্ট শেয়ার। গ্রাহকরা এখন ফাইল শেয়ারিংয়ের ক্ষেত্রে দ্রুত লোডিং এবং আরও কার্যকর মেন্যু দেখতে পারবেন। ইউআরএল শেয়ারিংয়ের ক্ষেত্রে লিংক কপির অপশন মেন্যুর উপরের দিকে পাওয়া যাবে।

রিয়েল-টাইম লাইভ ক্যাপশন

লাইভ ক্যাপশন ফিচারের মাধ্যমে আপনি যেকোন অডিও বা ভিডিওর সাবটাইটেল দেখতে পারবেন, এর জন্য কোন ইন্টারনেট কানেকশনের প্রয়োজন হবে না।  কেননা অ্যান্ড্রয়েড ১০ এ এই ফিচারটি ফোনে থাকা আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সির উপর নির্ভর করবে।

উদাহরণ স্বরূপ আপনি যদি ফেসবুকে লাইভে আসেন এবং ভিডিওতে কিছু লিখতে চান তবে এই ফিচারের মাধ্যমে লিখতে পারবেন।