শুক্রবার, ১৭ মে ২০২৪, ০৬:২৪ পূর্বাহ্ন
                                           

কমেছে ডলারের দাম ‘খোলাবাজারে’

দুই দিনের ব্যবধানে খোলাবাজারে ডলারের দাম কিছুটা কমেছে। গতকাল রোববার রাজধানীর খোলাবাজারে প্রতি ডলার বিক্রি হয়েছে ১২৫ টাকা ৫০ পয়সায়। গত বৃহস্পতিবার ১২৭ টাকায়ও ডলার বিক্রি হয়েছিল। ফলে দুই দিনে দাম কমেছে প্রায় আড়াই টাকা। বাজার ঘুরে এই চিত্র পাওয়া গেছে।
ডলার ব্যবসায়ী ও সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা জানান, সাধারণ ক্রেতারা ব্যাংক থেকে ডলার কিনতে পারছেন না। আবার মানি চেঞ্জারগুলোয়ও নির্ধারিত দামে ডলার পাওয়া যাচ্ছে না। ফলে খোলাবাজারই এখন ডলার জোগানের অন্যতম মাধ্যম হয়ে উঠেছে। এতে ডলারের দাম দফায় দফায় বাড়ছে। তাতে বাড়তি দামে ডলার কিনতে হচ্ছে তাঁদের। গত সপ্তাহের শুরুতে খোলাবাজারে প্রতি ডলারের দাম ছিল ১২১ থেকে ১২২ টাকা। শেষ দুই দিনে তা বেড়ে ১২৬ টাকা ৫০ পয়সা থেকে ১২৭ টাকায় ওঠে। তবে গতকাল ডলারের দাম ১২৫ টাকা ৫০ পয়সায় নেমেছে।
ব্যাংকগুলোয় বর্তমানে প্রতি ডলারের বিক্রয়মূল্য ১১৪ টাকা আর ক্রয়মূল্য ১১৩ টাকা। কিন্তু ব্যাংকগুলো ডলার দিচ্ছেও না, কিনতেও পারছে না। কারণ, খোলাবাজারে ডলার বিক্রি করলে ভালো দাম পাওয়ায় প্রবাসী ও বিদেশফেরত ব্যক্তিরা সেদিকেই ঝুঁকছেন।

মতিঝিলের খোলাবাজারের ডলার বিক্রেতা মোকাররম হোসেন গতকাল প্রথম আলোকে বলেন, গতকাল ১২৫ টাকায় ডলার কিনে ৫০ পয়সা বেশি দামে বিক্রি করা হয়েছে। তবে সরবরাহ খুবই কম। ফলে বিক্রিও করা যাচ্ছে না। দাম অনেক বেশি হওয়ায় একটু চাহিদাও কমে গেছে। যাঁরা মজুতের উদ্দেশ্যে কেনেন, তাঁরা কিনছেন না।
বাজারসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, চিকিৎসার জন্য প্রতি মাসে বিপুলসংখ্যক বাংলাদেশি ভারতসহ এশিয়ার বিভিন্ন দেশে যান। প্রচুর শিক্ষার্থীও বিদেশে পড়াশোনার জন্য যান। আর পর্যটনের জন্যও ভ্রমণপিপাসুরা এখন বিশ্বের নানা প্রান্তে ছুটছেন। এসব গ্রাহক খোলাবাজার থেকে ডলার কিনে থাকেন।



ফেইসবুক পেইজ