বাড়ি রাজনীতি বিএনপির জনসভা দেখে কাঁপছে সরকার- রুহুল কবীর রিজভী

বিএনপির জনসভা দেখে কাঁপছে সরকার- রুহুল কবীর রিজভী

119
সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের জনসভায় বিপুল সমাগম দেখে সরকারের কাঁপুনি ধরে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবীর রিজভী। সোমবার (১ অক্টোবর) দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন তিনি।

রিজভী বলেন, ‘গতকাল (৩০ সেপ্টেম্বর) বিএনপির জনসভা মহাসাগরে পরিণত হয়। চারদিক থেকে ধেয়ে আসা জনস্রোতে সোহরাওয়ার্দীর বিশাল প্রান্তর কানায় কানায় ভরে যায়। রমনা পার্কসহ আশপাশের রাস্তাঘাট, মোড় ও ফুটপাত মিটিং শুনতে আসা মানুষে ঠাসা ছিল। শাহবাগ, কাকরাইল, মৎস্যভবন এলাকা সংলগ্ন এলাকায়ও ছিল উর্মীমালার মতো জনতার ঢেউ। অথচ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সাহেব তার প্রতিক্রিয়ায় বলেছেন, বিএনপির সমাবেশের উপস্থিতি প্রমাণ করে বিএনপির জনপ্রিয়তা কমেছে। এর উত্তরে নীরব হাসি ছাড়া আর কিই বা বলতে পারি।’

তিনি বলেন, ‘রাষ্ট্রীয় কোষাগার ও বিপুল পরিমাণ চাঁদাবাজির টাকা খরচ করেও সমাবেশে মানুষ আনতে পারেন না। অথচ বিএনপির সমাবেশে পথে পথে সরকারি দলের বাধার মুখেও বিপুল মানুষের সমাগম হয়। এতে তারা হতাশ হয়ে প্রলাপ বকছেন। একতরফা নির্বাচনী বৈতরণি পার হতে আওয়ামী নেতারা কত তামাশা দেখাচ্ছেন, আর কত যে উদ্ভট কথা বলছেন তার শেষ নেই।’

তিনি বলেন, ‘দল হিসেবে আওয়ামী লীগের এখন হতভাগ্য দেউলিয়াগ্রস্ত রাজনীতি। সে জন্যই খাপছাড়া কথা বলছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। জনসভায় বিপুল সমাগম দেখে সরকারের কাঁপুনি ধরে গেছে, সে জন্যই বিএনপি নেতাকর্মীদের ব্যাপক হারে গ্রেফতারকে সরকার রক্ষাকবচ মনে করছে। জনসভা শেষে দেখলাম, বিএনপি নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষের ওপর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ঔদ্ধত্য আক্রমণে গ্রেপ্তারের মহড়া। এ জনসভা ঘিরে বিএনপির চার শতাধিক নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।’

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আতাউর রহমান ঢালী, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, সহ-দফতর সম্পাদক মুহাম্মদ মুনির হোসেন, তাইফুল ইসলাম টিপু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।