বাড়ি অদ্ভুতুড়ে আবারও ‘ছেলেধরা সন্দেহে’ সাভারে নারীকে পিটিয়ে হত্যা

আবারও ‘ছেলেধরা সন্দেহে’ সাভারে নারীকে পিটিয়ে হত্যা

130

সাভারে ছেলেধরা সন্দেহে অজ্ঞাত পরিচয় এক নারীকে পিটিয়ে হত্যা করেছে স্থানীয়রা। শনিবার (২০ জুলাই) রাতে ঢাকার শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওই নারীর মৃত্যু হয়। এরআগে, সকালে হেমায়েতপুর এলাকায় এক শিশুকে বিস্কুট খাওয়াতে গেলে তিনি গণপিটুনির শিকার হন।

আনুমানিক ২৫ থেকে ৩০ বছর বয়সী ওই নারী শনিবার দুপুরে তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়নে জনতার পিটুনিতে গুরুতর আহত হন। তার নাম-পরিচয় এখনও জানাতে পারেনি পুলিশ।

সাভার চামড়া শিল্পনগরী পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশ পরিদর্শক এমারত হোসেন জানান, অজ্ঞাত ওই নারী (৩৫) সাভারের তেতুঁলঝোড়া এলাকায় তেতুঁলঝোড়া কলেজের অদূরে বাসা ভাড়া নেওয়ার উদ্দেশে একটি বাসায় ঢুকেছিল। ওই সময় আশেপাশের লোকজন তাকে ছেলেধরা সন্দেহে আটক করে বেধড়ক মারপিট করে। এ সময় ওই নারী তার মাথায় প্রচণ্ড আঘাত পান এবং গণপিটুনিতে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। 

খবর পেয়ে সকাল পৌনে ১১টার দিকে ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে ওই নারীকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। তখন তার নাক-মুখ দিয়ে রক্ত ঝরছিল। সেখান থেকে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য পরে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেলে ওই নারী মারা যান। নিহত নারীর নাম পরিচয় এখনো জানা যায়নি।

এই পুলিশ কর্মকর্তা আরো বলেন, ‘মানুষের ভুল বোঝাবুঝি, গুজব এবং পরিস্থিতির শিকার হয়েছেন ওই নারী। আমরা এ ব্যাপারে জনগণকে সচেতনতা সৃষ্টি করার চেষ্টা করছি। যেন কেউ আইন হাতে তুলে না নেয়।’ কোনো সন্দেহভাজন ব্যক্তির সন্ধান পেলে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ অথবা আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের অবহিত করার জন্য তিনি অনুরোধ জানিয়েছেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সাভার মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এ এফ এম সায়েদ। তিনি বলেন, নিহত নারীর নাম পরিচয় জানার চেষ্টা চলছে। এ ঘটনায় অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের আসামি করে থানায় একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।