শুক্রবার, ১৭ মে ২০২৪, ০৭:৫৬ পূর্বাহ্ন
                                           

বৃষ্টি বাড়তে পারে, কমতে পারে তাপপ্রবাহ

গত এক সপ্তাহের প্রায় পুরো সময় কেটেছে গরমের মধ্যে। মাঝেমধ্যে কোথাও কোথাও বৃষ্টি ঝরলেও দিনের বড় অংশজুড়ে ছিল কাঠফাটা রোদ। গতকাল রোববার দেশের অর্ধেকের বেশি এলাকা দিয়ে তাপপ্রবাহ বয়ে গেছে। এই গরম কমার ইঙ্গিত দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাস বলছে, আজ সোমবার রাজধানীসহ দেশের বেশির ভাগ এলাকায় হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে তাপমাত্রা কমে গরমের তীব্রতা কমে আসতে পারে। আগামী দুই-তিন দিন বৃষ্টি বেড়ে গরম কমতে পারে।
এদিকে গতকাল রাতে রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি ঝরে। রাত ৮টা থেকে নামা ওই বৃষ্টি চলে টানা কয়েক ঘণ্টা। এতে সারা দিনের গরম কমে কিছুটা স্বস্তি নামে। সোমবার থেকে গরম আরও কমতে পারে বলে মনে করছেন আবহাওয়াবিদেরা। চলতি সপ্তাহের বেশির ভাগ সময়জুড়ে থেমে থেমে বৃষ্টি ঝরতে পারে। এতে কমতে পারে গরমের কষ্ট।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ এ কে এম নাজমুল হক প্রথম আলোকে বলেন, মৌসুমি বায়ু এখনো বাংলাদেশের ওপর সক্রিয় আছে। তবে এই মাসের মধ্যে এর বড় অংশ বাংলাদেশ থেকে বিদায় নেবে।
আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, বাতাসে এরই মধ্যে আর্দ্রতা কমে শুষ্কতা বাড়ছে। ভোরের দিকে হালকা শীতের বাতাসও বইছে। চলতি মাসের শেষের দিকে মৌসুমি বায়ু বিদায় নিলে বিভিন্ন স্থানে কুয়াশা ও শিশির পড়া শুরু করবে। এরই মধ্যে অবশ্য দেশের অনেক জায়গায় তা পড়তে শুরু করেছে। মাসের শেষের দিকে তাপমাত্রা কমে হালকা শীতের অনুভূতি পাওয়া যেতে পারে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পর্যবেক্ষণ অনুযায়ী, গতকাল দেশের অর্ধেকের বেশি এলাকায় যে তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছিল, তা কমে আসতে পারে। কোথাও কোথাও ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিও হতে পারে। গতকাল দেশের সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হয়েছে চট্টগ্রামের সন্দ্বীপে—১০ মিলিমিটার। আর সবচেয়ে বেশি তাপমাত্রা ছিল মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে—৩৭ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস।



ফেইসবুক পেইজ